আব্বু ক্রাইম পেট্রোল দেখে আমার সাথে খারাপ কাজ করে

আব্বু ক্রাইম পেট্রোল দেখে- মাদারীপুর শহরের রকেট বিড়ি এলাকায় জয়নাল বেপারী (৪৩) নামে এক পিতা চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ুয়া নিজ মেয়েকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা শনিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর পিতা জয়নাল আত্মগোপন করেছে। ধর্ষিতা শিশুটিকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে বর্তমানে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

স্থানীয় ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষিতা শিশুটির মা মেয়েকে বাবার কাছে রেখে চিকিৎসার জন্য ঢাকা যায়। এই সুযোগে ঘরে একা পেয়ে গত শুক্রবার(১৪ সেপ্টেম্বর) রাতে শিশুটিকে মুখ চেপে ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য হুমকি দেয়।

পরে চিকিৎসা শেষে শিশুটির মা মাদারীপুর ফিরে আসলে ধর্ষণের বিষয়টি জানতে পারে। এরপর শিশুর মা শ্বশুরবাড়ির লোকজনের কাছে ধর্ষণের বিষয়টি জানালে তারা ঘটনাটি গোপন রাখার জন্য হুমকি ধামকি দেন। পরে তার আত্মীয় যুবলীগ নেতা সুমন মোল্লার সহযোগীতায় মেয়েকে মাদারীপুর সদর থানায় নিয়ে যায়।

যুবলীগ নেতা সুমন মোল্লা বলেন, শিশুটির পরিবার অনেক গরীব। বিষয়টি আমি জানার পর ওদের থানায় নিয়ে গিয়ে মামলা করার পরামর্শ দেই। পরে সদর থানায় শিশুর মা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছে। আমরা এই পিতার সবোর্চ্চ শাস্তি দাবি করছি যাতে আর কেউ এই ধরনের অপকর্ম করার সাহস না পায়।

ধর্ষণের বিষয় কান্নাজড়িত কন্ঠে শিশুটি বলেন, গত শুক্রবার রাতে আব্বু ক্রাইম পেট্রোল দেখে টিভি বন্ধ করে আমার পাশে ঘুমাতে আসে, পরে আব্বু আমার উপরে উঠে আমাকে চেপে ধরে আমার সাথে খারাপ কাজ করে।

এব্যাপারে মাদারীপুর সদর থানার ওসি (তদন্ত) সিরাজুল ইসলাম বলেন, এই ঘটনায় মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে। আমরা আসামী জয়নাল বেপারীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি শিগিরিই গ্রেফতার করতে পারবো।’

শিশুর দাঁতের যত্ন নিবেন যেভাবে? আমাদের শরীরের অত্যন্ত সংবেদনশীল এবং গুরুত্বপূণর্ অঙ্গ হলো দাঁত। শিশুর সুস্থভাবে বাঁচার জন্য প্রয়োজন এই বিশেষ অঙ্গের উপযুক্ত পরিচযার্ ও সংরক্ষণ।

বয়স ভেদে দাঁতের সাধারণ রোগের উপসগর্ এবং কারণ শিশুর জন্মের ৬ মাস পর থেকে দুধ দাঁত ওঠা শুরু হয় এবং প্রায় ৩ বছর বয়স পযর্ন্ত উঠতে থাকে। তাই ৬ মাস বয়স থেকেই দাঁতের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এ সময় শিশুকে দুধের পাশাপাশি অন্যান্য নরম খাবার দেয়া হয়।

ফলে ল্যাকটোজ, গ্লুকোজ ও অন্যান্য পলিস্যাকারাইড লম্বা সময় ধরে দাঁতের সংস্পশের্ থাকে। শিশুকে খাবার খাওয়ানোর পর ভালোভাবে পরিষ্কার না করলে ক্যালসিয়ামের সঙ্গে স্যালাইভা মিশে মিনারেল, ব্যাকটেরিয়া ইত্যাদির সংস্পশে এসে খাবারের ফােেমর্ন্টশন হয়।

এতে ল্যাকটিক অ্যাসিড তৈরি হয়, যা দাঁতের এনামেলের ক্ষতি করে। এভাবেই দাঁতে ক্যারিজ বা ক্ষয় শুরু হয় এবং পরে তা দাঁতের ডেন্টিন ও পাল্প পযর্ন্ত বিস্তার লাভ করতে পারে। শিশুর দাঁতে বাদামি বা কালচে দাগ দেখলে দ্রুত ডেন্টিস্টের পরামশর্ গ্রহণ করতে হবে।

সাধারণত ৭-৯ বছরের শিশুদের সামনের দাঁতগুলোর কিছুটা ফাঁকা ফাঁকা হয়ে থাকে। এ বিষয় নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই, পামোর্নন্ট দাঁত উঠে গেলে তা আপনা আপনি সঠিক পজিশনে চলে যায়। খাবার শরীরের স্বাভাবিক গঠন ও পুষ্টির জন্য সব ধরনের খাবার প্রয়োজন, তবে ক্যান্ডি, মিষ্টিজাতীয় খাবার, জুস ইত্যাদি সীমিত পরিমাণে খাওয়া উচিত।

সাধারণত এসিডিক ফুড, যেমন- ল্যাকটিক অ্যাসিড যুক্ত খাবার দাঁত ক্ষয়ের প্রধান কারণ। অতিরিক্ত চকোলেট, আইসক্রিম খাওয়া যাবে না এবং এ জাতীয় খাবার খাওয়ার পর দাঁত পরিষ্কার করা উচিত।

সেটি সম্ভব না হলে মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়ারপর আঁশজাতীয় ফল, যেমন- পেয়ারা, আপেল, নাশপাতি ইত্যাদি খাওয়া উত্তম। ফলে সহজে দাঁতে ক্যাভিটি সৃষ্টি বা ব্যাকটেরিয়া জমতে পারে না। দুই দাঁতের মধ্যবতীর্ ফাঁকে খাবার লেগে থাকলে দাঁতের ক্ষতি হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে ফ্লস ব্যবহার করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*