পশ্চিম দিকে পা দিলে কী হয়?

পশ্চিম দিকে পা দিলে- সমাজে ধর্মীয় কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা সমালোচনা হয়ে থাকে। আসলে যার কোনো ভিত্তি নেই অথবা ইসলাম ওই বিষয়গুলো সমর্থনও করে না। কিন্তু না জানা থাকার কারণে সাধারণ মানুষ বিষয়গুলো নিয়ে ভুল করে থাকে। এরকম কয়েকটি বিষয়ে আজকের প্রশ্নোত্তর।

প্রশ্ন: হিন্দু ছেলে-মেয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলে, সে পিতা-মাতার সাথে খাওয়া দাওয়া ও তাদের সম্পদ ভোগ করতে পারবে কিনা?

উত্তর: অমুসলিম পিতা-মাতার সম্পদ থেকে মুসলিম সন্তানদের জীবিকা নির্বাহ অবৈধ নয়। তবে ইসলাম গ্রহণের কথা গোপন রাখা ঠিক হবে না। বিষয়টি প্রকাশ করে দেওয়া এবং সম্পূর্ণ ইসলামী জীবন-যাপন করা তার কর্তব্য।

যদি ইসলাম ধর্ম গ্রহণের ফলে পিতা-মাতার কাছ থেকে কোনো সমস্যা দেখা না দেয়। তাহলে অন্য কোনো পথ অবলম্বন করবে। পরবর্তীতে সমস্যা কেটে গেলে পিতা-মাতা ও আত্মীয়-স্বজনের সাথে সাক্ষাৎ করতে পারবে।

এমনকি প্রয়োজনে তাদের সেবা-যত্নও করতে পারবে।(মুসনাদে আহমদ,হাদিস:১৫৬৭৯; বাদায়েউস সানায়ে ৩/৪৪৯; আদ্দুররুল মুখতার ৩/৬১৪;)

প্রশ্ন: পশ্চিম দিকে পা রাখা কি হারাম?

উত্তর: পশ্চিম দিকে পা রাখা হারাম নয়। কোনো কারণ ব্যতীত কিবলার দিকে পা রাখা মাকরুহ। কারণ এতে কিবলার আদব রক্ষা হয় না। (ফাতহুল কাদীর ১/৩৬৬; রদ্দুল মুহতার ১/৬৫৫; আলবাহরুর রায়েক ২/৩৩)

প্রশ্ন: বিষ, গলায় ফাঁস বা যেকোনো ভাবে আত্মহত্যা করলে সে কি জাহান্নামী হবে? সমাজে প্রচলিত আছে যে, এমন ব্যক্তি জাহান্নামী এবং এদের জন্য দোয়া করা অনুচিত বা হারাম।

উত্তর: আত্মহত্যা করা ব্যক্তি জান্নাতি নাকি জাহান্নামী এ ব্যাপারে কথা বলার অধিকার ইসলাম কাউকে দেয়নি। যদিও আত্মহত্যা করা কবিরা গুনাহ, অনেক ক্ষেত্রে এ গুনাহ থেকে তাওবাও সম্ভব হয় না। তাই এর ভয়াবহতা খুবই বেশি।

কিন্তু এ ধরনের মুসলমান ব্যক্তিরও জানাজা পড়তে হবে। তবে সমাজের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গের এসব জানাজায় শরীক না হওয়া ভালো। আর এদের জন্য মাগফেরাতের দোয়া করা সম্পূর্ণ জায়েজ। (বুখারি শরিফ ১/১৮২; রদ্দুল মুহতার ২/২১১; ফাতওয়ায়ে আলমগিরি ১/১৬৩)

মদিনার ‘জিন পাহাড়’ পরিদর্শন সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ ঘোষণা

মদিনা মুনাওয়ারার কাছে অবস্থিত ওয়াদি বায়জা (জিন পাহাড়) পরিদর্শন সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সৌদি সরকার। এই আদেশ অমান্য করে কোনো চালক বা হাজি সেখানে গেলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও সতর্ক করা হয়েছে।

মদিনার ‘জিন পাহাড়’ পরিদর্শন সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ ঘোষণা

সৌদি হজ মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বাংলাদেশ হজ অফিস, মদিনা এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

বাংলাদেশ হজ অফিস সূত্র জানান, জিন পাহাড় দেখতে গিয়ে হজ অফিস, মদিনার এক ড্রাইভারকে পাঁচ হাজার রিয়েল জরিমানা গুণতে হয়েছে। তাই সেখানে না যেতে সকলকে অনুরোধ করা হচ্ছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের হাজিদের কাছে জিন পাহাড় অন্যতম আকর্ষণীয় একটি স্থান। হাজিরা সৌদিতে আসার আগেই জিন পাহাড় সম্পর্কে শুনেছেন। মদিনাতে এসে অনেকেই সেখানে যাবেন বলে মনস্থির করেছিলেন। হঠাৎ করে সৌদি সরকারের এমন সিদ্ধান্ত হাজিদের আশাহত করেছে।

মদিনা শহর থেকে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে ওয়াদি আল বায়দা নামক স্থানে অবস্থিত এই জিনের পাহাড়। কেউ বলে মদিনার জাদুর পাহাড় আবার কেউ বলে চুম্বকের পাহাড়।

যে নামেই পরিচিত হোক না কেন এটি পৃথিবীর অবাক এক বিস্ময়। এর আরেক অবাক করা বৈশিষ্ট হলো, এটি সবকিছুকেই টেনে নিয়ে যায় মদিনার দিকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*