টাইগারদের নাকানি-চুবানি দিয়ে সিরিজ শ্রীলঙ্কার

প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে দশ ম্যাচের দশটিতেই হারলো বাংলাদেশ। সাকিব-মাশরাফিবিহীন বাংলাদেশ যে কতটা অসহায় আর নখদন্থীন সেটা ফুটে উঠলো আরও একটি বার। সেই সাথে বিশ্বকাপ পরবর্তী সিরিজে প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়াই হারলো বাংলাদেশ। ২০১৭ সালের পর টানা চার ম্যাচ হারলো বাংলাদেশ।

সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছে ৭ উইকেটে। বাংলাদেশের হয়ে দুইটি উইকেট পেয়েছেন মুস্তাফিজ, একটি মিরাজ। জাতীয় দলের অধিকাংশ ক্রিকেটার ছাড়া এই সিরিজে বাংলাদেশের হতাশার মাত্রাটা বাড়লো আরও বহুগুণ।

ফার্নান্ডো-পেরেরার উইকেটের পর কিছুটা আশা দেখেছিল বাংলাদেশ। তবে মেন্ডিস-ম্যাথিউসের ৯৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি সে আশায় জল ঢেলেছে। ম্যাথিউস পেয়েছেন ফিফটি, ৪১ রানে অপরাজিত ছিলেন মেন্ডিস। আর উইকেটের দেখা পায়নি বাংলাদেশ।

প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও শ্রীলঙ্কা পেয়েছে দাপুটে জয়, এক ম্যাচ বাকি রেখে নিশ্চিত করেছে সিরিজ জয়ও। ২০১৫ সালের পর এই প্রথম দেশের মাটিতে সিরিজ জিতল শ্রীলঙ্কা। ২০১৭ সালের পর টানা চার ম্যাচ হারলো বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তানের পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম দুই ম্যাচ- হারের বৃত্ত থেকে বের হতে পারেনি এখনও বাংলাদেশ।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিং নিয়ে বরাবরের মতন আজকেও ব্যর্থ হয়েছে তামিম-সৌম্য। এরপর মুশফিক-মিরাজ বাদে কেউই পারেনি হাল ধরতে। দলের ব্যাটসম্যানরা ব্যস্ত ছিল আসা যাওয়ার মিছিলে। মুশফিকের অপরাজিত ৯৮ রানের উপর ভর করে দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় ২৩৮ এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*